আজ সোমবার, ১০ই আগস্ট, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ২৬শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

সাতক্ষীরায় আম্পানে ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে খুলনা বিএনপির ত্রান বিতরণ

খবর বিজ্ঞপ্তি : বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশনায় ঘূর্ণিঝড় আম্ফানে সাতক্ষীরায় ক্ষতিগ্রস্থ ৪০০ পরিবারের মাঝে আজ ১৪ জুন (রবিবার) ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেছেন খুলনা মহানগর ও জেলা বিএনপির নেতৃবৃন্দ। ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের মাঝে চাল, ডাল, আলু, পেঁয়াজ, লবন ও বিশুদ্ধ খাবার পানি ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও মহানগর বিএনপি’র সভাপতি, সাবেক সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম মঞ্জু উপস্থিত থেকে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণের কথা ছিল। কিন্তু তার সহধর্মিণী মানবাধিকার সংগঠক এ্যাডঃ সৈয়দা সাবিহা করোনা পজেটিভ হওয়ায় পরিবারসহ আইসোলেশনে থাকায় নজরুল ইসলাম মঞ্জু ত্রাণ কার্যক্রমে উপস্থিত থাকতে পারেননি।

এদিন সকাল ১০ টায় শ্যামনগর উপজেলার কাশিমাড়ি ও গাবুরায় চাঁদনীমুখা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ক্ষতিগ্রস্থ অসহায় মানুষের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেন খুলনা জেলা ও মহানগরের পক্ষে বিএনপি’র জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য, খুলনা মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক, খুলনা সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র, বীর মুক্তিযোদ্ধা মনিরুজ্জামান মনি। গত ১২ জুন সাতক্ষীরার আশাশুনি উপজেলার প্রতাপনগর, আনুলিয়া ইউনিয়নের ক্ষতিগ্রস্থদের ত্রান সামগ্রী আশাশুনি উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক রুহুল কুদ্দুসের নিকট হস্তান্তর করা হয়। এর আগে গত ৩ জুন আম্পানে কয়রায় ক্ষতিগ্রস্থ ৫০০ পরিবারের মাঝে ত্রান সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

ত্রান সামগ্রী বিতরণকালে কেসিসির সাবেক মেয়র মনিরুজ্জামান মনি বলেন, বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নিদেশনার আলোকে গত ২০ মে দেশের দক্ষিণাঞ্চলের উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া স্মরণকালের বিধ্বংসী ঘূণিঝড়ে হাজার হাজার উপকূলবাসী মানুষ দারুণভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হওয়ায় তাদের পাশে দাড়ানোর উদ্দেশ্যে এ কাযক্রম পরিচালনা করা হয়। ক্ষতিগ্রস্থ এলাকার মানুষের দু:খ দুদশায় সমবেদনা জানাতে এবং সীমিত হলেও যথাসাধ্য সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিতে বিএনপি সবসময় প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। দীঘ দেড় দশকে এ অঞ্চলের মানুষের জন্য টেকসই উন্নয়ন পরিকল্পনা গ্রহণ না করায় বারবার উপকূলের মানুষ প্রতারণার শিকার হয়েছে।

ঘূর্ণিঝড়ে দূর্গত মানুষের পাশে দাড়ানোর জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, যতদিন বাঁধ নিমান না হয় ততদিন উপকূলবাসীর মানবিক কমসূচির আওতায় আনতে হবে। ক্ষতিগ্রস্থ এলাকার মানুষের ক্ষতিপূরণ এবং পূনবাসনের ব্যবস্থা করতে হবে। সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধায়নে উপকূলীয় অঞ্চলে টেকসই বেড়ীবাঁধ নির্মাণ করতে হবে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন সাতক্ষীরা জেলা বিএনপি’র আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট সৈয়দ ইফতেখার আলী, খুলনা মহানগর বিএনপির সহ-সভাপতি আব্দুর রহমান, যুগ্ম সম্পাদক অধ্যক্ষ তারিকুল ইসলাম, সাতক্ষীরা জেলা বিএনপি’র যুগ্ম আহ্বায়ক হাবিবুর রহমান হাবিব, খুলনা মহানগর বিএনপির প্রচার সম্পাদক আসাদুজ্জামান মুরাদ, ত্রান বিতরণ কার্যক্রমের সার্বিক ব্যবস্থাপনায় থাকা খুলনা মহানগর জাসাসের আহ্বায়ক মেহেদি হাসান দিপু, শ্যামনগর উপজেলা বিএনপি’র সহ-সভাপতি, চেয়ারম্যান মাসুদুল আলম, খুলনা সদর থানা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ইউসুফ হারুন মজনু, খুলনা মহানগর বিএনপির সহ-দপ্তর সম্পাদক শামসুজ্জামান চঞ্চল, মোহাম্মদ আলী, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক সোলায়মান কবির, কেন্দ্রীয় আইনজীবী ফোরামের সদস্য এ্যাড, আব্দুস সালাম, সাতক্ষীরা জেলা যুবদল নেতা হাসান শাহরিয়ার রিপন, শ্যামনগর উপজেলা যুবদলের সভাপতি আজিজুর রহমান আজিবর, সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম দুলু, স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা নুরুজ্জামান, কাশিমাড়ী ইউনিয়ন বিএনপি নেতা জামিরুল ইসলাম বাবু, আব্দুর রশিদ, মফিজুর রহমান, আকতার ফারুক, গাবুরা ইউনিয়ন বিএনপি নেতা খায়রুল ইসলাম মিলন, মাসুদ রানা, আবু হানিফ সুমন, আব্দুস সালাম, জি এম কওসার আলি, মোস্তাফিজুর রহমান রিপন, মেহেদি হাসান টুটুল, শাহাজাহান সিরাজ, আমিনুর রহমান প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     সংশ্লিষ্ঠ আরো সংবাদ

বাংলাদেশে করোনা ভাইরাস

সর্বমোট

আক্রান্ত
২৫৭,৫৪৭
সুস্থ
১৪৮,৩৭২
মৃত্যু
৩,৩৯৯
সূত্র: আইইডিসিআর

সর্বশেষ

আক্রান্ত
২,৪৮৭
সুস্থ
১,৭৬৬
মৃত্যু
৩৪
স্পন্সর: একতা হোস্ট