খুলনায় ঈদের জামাতে মুসল্লিদের ঢল

প্রকাশিত: ০৫-০৬-২০১৯, সময়: ১৬:১৮ |

নিজস্ব প্রতিবেদক

খুলনায় ঈদুল ফিতরের প্রথম ও প্রধান জামাত টাউন জামে মসজিদে বুধবার (৫ জুন) সকাল ৮টায় অনুষ্ঠিত হয়েছে। পরে দ্বিতীয় জামাত ৯টায় এবং তৃতীয় ও শেষ জামাত ১০টায় অনুষ্ঠিত হয়। কোর্ট জামে মসজিদে সকাল সাড়ে ৮টায় অনুষ্ঠিত হয় একটি জামাত।

ঈদের আগের দিন (৪ জুন) খুলনায় বৃষ্টি হওয়ায় সার্কিট হাউজ ময়দানে পানি জমে কর্দমাক্ত হয়ে পড়ে। যার কারণে খুলনায় ঈদ-উল-ফিতরের প্রথম ও প্রধান জামাত সার্কিট হাউজে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও তা বাতিল করা হয়।

এদিকে ঈদের দিন সকালে রৌদ্রজ্জ্বল থাকায় ঈদের নামাজের জামাতে মুসল্লিদের ঢল নামে। প্রধান জামাতের নামাজে ইমামতি করেন খুলনা জেলা ইমাম পরিষদের সভাপতি ও টাউন জামে মসজিদের খতিব মাওলানা সালেহ।

নামাজে অংশ নিতে সকাল থেকে মুসল্লিদের ঢল নামে টাউন জামে মসজিদে। ঈদের প্রধান জামাতে অংশ নিতে শহরের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে পায়জামা-পাঞ্জাবি পরিহিত মুসল্লিরা দলে দলে আসতে থাকেন। প্রতিবারের মতো এবারও ঈদগাহে নেওয়া হয় কড়া নিরাপত্তাব্যবস্থা।

নামাজ শেষে দেশ, জাতি ও মুসলিম উম্মাহর শান্তি-অগ্রগতি ও সমৃদ্ধি কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়। পরে মুসল্লিরা কোলাকুলি ও কুশলাদি বিনিময় করেন।

প্রধান জামাতে ঈদের নামাজ আদায়ের জন্য এক সারিতে দাঁড়ান বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতা, প্রশাসনের কর্মকর্তা, ব্যবসায়ী-শিল্পপতিসহ নগরীর বিভিন্ন স্থান থেকে আসা সাধারণ মানুষ।

ঈদের প্রধান জামাতে অংশগ্রহণ করেন খুলনা সিটি মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক, খুলনা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হারুনুর রশিদ, জেলা প্রশাসক মোহাম্মাদ হেলাল হোসেন, মহানগর বিএনপির সভাপতি নজরুল ইসলাম মঞ্জু, সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনি, জেলা বিএনপির সভাপতি এস এম শফিকুল আলম মনাসহ প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

খুলনা সিটি করপোরেশন পরিচালিত বায়তুন নূর জামে মসজিদ কমপ্লেক্স-এ ঈদ-উল-ফিতরের দু’টি জামায়াত অনুষ্ঠিত হয়।

সকাল সাড়ে ৮টায় প্রথম জামায়াতে ইমামতি করেন মসজিদের খতিব হাফেজ মাওলানা ইমরান উল্লাহ এবং সকাল সাড়ে ৯টায় দ্বিতীয় জামায়াতে ইমামতি করেন মসজিদের পেশ ইমাম মাওলানা আব্দুল গফুর।

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে ঈদ-উল ফিতরের নামাজের জামাত সকাল সাড়ে ৭টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্মাণাধীন নতুন কেন্দ্রীয় মসজিদে অনুষ্ঠিত হয়।

খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (কুয়েট) জামাত সকাল সাড়ে ৮টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ প্রঙ্গণে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এছাড়া ইসলামপুর জামে মসজিদে সকাল সাড়ে ৭টায়, সরকারি বিএল কলেজ জামে মসজিদে সকাল ৮টায়, মসজিদে আমানাত সকাল ৮টায়, বাংলাদেশ ব্যাংক কোয়ার্টার জামে মসজিদে সকাল ৮টায়, আল-হেরা জামে মসজিদে সকাল ৮টায়, তালাবওয়ালা জামে মসজিদে (দারুল উলুম মসজিদ) ৮টায়, আরাফাত মসজিদে সকাল সাড়ে ৮টায়, বাইতুল কোবা জামে মসজিদ সকাল ৮টায়, আব্দুর রশীদ জামে মাসজিদে সকাল সাড়ে ৭টায়, মতি মসজিদে সকাল ৮টায়, মজিদিয়া খান জাহান নগর জামে মসজিদে সকাল সাড়ে ৭টায়, পূর্ব বানিয়া খামার কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে সকাল ৭টা ৪৫ মিনিটে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়।

খুলনা সিটি করপোরেশন এলাকায় ৩১টি ওয়ার্ডে বিভিন্ন ঈদগাহ ময়দান এবং স্থানীয় মসজিদে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়।

মহানগরী ছাড়াও জেলার ৯ উপজেলায় স্থায়ী-অস্থায়ী ৪৫০টি ঈদগাহে সকাল ৭টা থেকে ৯টার মধ্যে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে।

তথ্য টি শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a comment

উপরে